মাঝে মাঝে নিজের সত্ত্বা, বিবেক, মূল্যবোধ নিয়ে ভেবে দেখাটা খুবই জরুরী

মাঝে মাঝে নিজের সত্ত্বা, বিবেক, মূল্যবোধ নিয়ে ভেবে দেখাটা খুবই জরুরী

মাঝে মাঝে নিজের সত্ত্বা, বিবেক, মূল্যবোধ নিয়ে ভেবে দেখাটা খুবই জরুরী

একটু খেয়াল করলেই দেখা যাবে বাড়ির বয়োজ্যেষ্ঠ বা মুরুব্বিরা প্রায়ই আফসোস করেন। আফসোস করেন এই বলে যে মানুষ আর আগের মত নেই। আসলেই কি তাই? হয়তো! আজকালকার যান্ত্রিক পৃথিবীতে মানুষও যেন হয়ে উঠেছে মেশিনের মতোই। সোশ্যাল মিডিয়া খুব ভয়ানক দ্রত গতিতে দখল করে নিয়েছে সামাজিক মেলামেশার স্থান। কঠিন পৃথিবীর নিয়ম-কানুনের সাথে মানিয়ে চলতে চলতে আমরাও ক্রমশ হয়ে উঠেছি যান্ত্রিক। এই তো কিছু বছর আগেও বিকেল হলে পাড়ার ছেলেমেয়েরা দল বেঁধে খেলা করতো, উৎসব-অনুষ্ঠানে প্রতিবেশীর বাড়িতেও যেত ভালোমন্দ খাবারের ভাগ, সুখে-দুঃখে পরস্পরের পাশে থাকতেন সকলেই। আর এখন হয়তো পাশাপাশি ফ্ল্যাটে বহুকাল থেকেও নামটা জানা হয় না, নিকট আত্মীয়ের বিপদ-আপদেও সাথে পাওয়া যায় না কাউকেই, পথ চলতে গিয়ে কারো প্রয়োজনের দিকে চোখ পড়লেও আমরা মুখ ফিরিয়ে নিই।

এই নির্মম পৃথিবীর নিয়ম-কানুনের সাথে চলতে গিয়ে কতটা বদলে গেছেন আপনি? মানবিক বোধগুলো কতটা ঝাপসা হয়ে উঠেছে? কতটা হয়ে উঠেছেন স্বার্থপর ও একা? থাকছে কিছু প্রশ্ন। এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিতে দিতেই নিজেকে নিয়ে কিছুক্ষণ ভাবা হয়ে যাবে আপনার।

১.আপনি কি একজন দয়ালু মানুষ? অন্যের দুঃখে আপনার মন কাঁদে? অন্যের ভোগান্তি দেখে কি আপনি ব্যথিত বোধ করেন?

২. আত্মীয়-স্বজনের বিপদে সর্বদা কি আপনাকে পাওয়া যায়?

৩. শেষ কবে অপরিচিত কারো উপকার করেছিলেন সম্পূর্ণ নিঃস্বার্থ ভাবে?

৪. আপনি কি নিয়মিত দান বা চ্যারিটি করেন?

৫. প্রতিবেশীর সাথে আপনার সম্পর্ক কি বন্ধুত্বপুর্ন?

৬. আপনি কি মনে করেন ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিৎ?

৭. আপনি কি নারীদেরকে পর্যাপ্ত সম্মান প্রদান করে থাকেন?

১০. আপনি কি মনে করেন কন্যা শিশুদের বাল্য বিবাহ বন্ধ হওয়া উচিৎ?

১১. আপনি পরিবেশ রক্ষার জন্য কোন কাজ করেন কি?

১২. আপনি কি মনে করেন শহর পরিষ্কার রাখার জন্য নিজেদেরই উদ্যোগ নেয়া উচিৎ?

১৩. আপনি কি যৌন হয়রানি বা ইভ টিজিংকে অন্যায় মনে করেন?

১৪. আপনি কি প্রেম-ভালোবাসা-বিয়ের ক্ষেত্রে বিশ্বস্ত?

১৫. আপনার সত্যিকারের বন্ধুর সংখ্যা অনেক?

১৬. আপনি কি বন্ধুদের সাথে সর্বদা সৎ ও বিশ্বস্ত থাকেন?

১৭. আপনি কি বেশীরভাগ সময় সত্য কথা বলেন?

১৮. আপনি কি এমন কোন পেশায় জড়িত যা পুরোপুরি সৎ এবং তাতে কোন প্রতারণা বা ছল-চাতুরি নেই?

১৯. আপনি কি নিশ্চিত যে সজ্ঞানে ও স্বেচ্ছায় কখনো কারো ক্ষতি করেন নি?

২০. আপনি কি স্ত্রী বা কাজের মেয়েদের গায়ে হাত তোলাকে ঘৃণা করেন?

২১. আপনি কি মনে করেন নারী স্বাধীনতা একটি মৌলিক অধিকার?

২২. আপনি ঈর্ষান্বিত হতে কখনো কারো ক্ষতি করেন না- ঠিক না ভুল?

২৩. আপনি অন্যকে বাজে ভাষায় গালাগাল করেন না- ঠিক না ভুল?

২৪. আপনি প্রতিশোধ নিতে আগ্রহী নন- ঠিক না ভুল?

২৫. আপনি মনে করেন ধনী হবার চাইতে ভালো মানুষ হওয়া জরুরী- ঠিক না ভুল?

প্রশ্নগুলো তো পড়লেন। এবার উত্তরগুলো একটি কাগজে লিখে ফেলুন তো! কিচ্ছু উত্তর না বোধক হতেই পারে। কিন্তু যদি উত্তরগুলোর বেশিরভাগই না বোধক হয়, তবে বুঝবেন নিজের মানবিক সত্ত্বার দিকে ফিরে তাকাবার সময় হয়েছে। নিজের মূল্যবোধ ও বিবেক নিয়ে ভেবে দেখার সময় হয়েছে। কারণ বেশীরভাগ প্রশ্নের উত্তর না বোধক মানেই আপনি হয়তো জীবনকে অন্য একটি দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে দেখছেন যা পরিবর্তন করা জরুরী। আর এগুলোই আপনাকে বাঁধা দিচ্ছে আরও বেশি মানবীয় একজন মানুষ হয়ে উঠতে।